• Reading time:3 mins read

ই কমার্স আধুনিক প্রযুক্তির অন্যতম সুফল। ঘরে বসেই নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্য কেনাকাটা করা ও পণ্য হাতে পেয়ে মূল্য পরিশোধ করা, অনলাইন ব্যাংকিং এর মাধ্যমে মূল্য পরিশোধ ইত্যাদি সুবিধার কারনে দিন দিন জনপ্রিয়তা বাড়ছে ই কমার্সের। বাংলাদেশে খুব অল্প সময়ের মাধ্যে অনেকই উদ্যোক্তা হয়েছেন ই কমার্সের সুবিধার কারনেই।

ফেসবুক, ও নিজস্ব ওয়েবসাইট এর মাধ্যমে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন তাদের ব্যবসাকে। আজকে আমরা আলোচনা করব এক্জন উদ্যোক্তার নিজস্ব একটি ই কমার্স ওয়েবসাইট থাকার সুবিধা সমূহ কি কি, তা নিয়ে।

graphics of ecommerce website

ই কমার্স ওয়েবসাইট কি?

এক কথায় বলতে গেলে অনলাইন পরিষেবা বা ইন্টারনেটের মাধ্যমে পণ্য ক্রয় বা বিক্রয় করাকে ই-কমার্স বলে। যদি কোনো পন্য খুচরো বা পাইকারি ক্রয় বা বিক্রয়ের জন্য অনলাইনে একটি ওয়েব সাইট বা মোবাইল অ্যাপ্লিকেশনের মাধ্যমে গ্রাহকদের কাছে তথ্য সরবরাহ করা হয়ে থাকে তাহলে, এই প্রক্রিয়াটিকে ই কমার্স বলা হবে। এবং যে সাইটে প্রক্রিয়াটি সম্পন্ন হয় তাকে ই কমার্স ওয়েবসাইট বলা হবে। যেমনঃ রকমারি.কম

নিজস্ব ই কমার্স ওয়েবসাইট থাকার সুবিধা সমূহ

যেকোনো ব্যাবসা প্রতিষ্ঠানের ডিজিটাল বা অনলাইন প্রেজেন্স তৈরিতে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে ওয়েবসাইট। কোনো ব্যবসা বা প্রতিষ্ঠানের যদি ওয়েবসাইট না থাকে তাহলে সে ব্যবসা বা প্রতিষ্ঠান তার কাঙ্ক্ষিত গ্রাহকের আস্থা অর্জনে ব্যর্থ হয়।

যেমন ধরুন আপনি একজন উদ্যোক্তা, আপনি শুধুমাত্র একটি ফেইসবুক পেইজের মাধ্যমে বিজনেস করেন। একটি পেইজের মাধ্যমে আপনি ব্যাবসা করতে পারবেন, কিন্তু পেজের উপর ক্রেতারা যতটুকু আস্থা রাখতে পারবে, তার চেয়ে অনেক বেশি আস্থা রাখবে যিনি ওয়েবসাইটের মাধ্যমে বিজনেস করছেন তার উপর। কিন্তু কেন?

আপনার ফেসবুক আইডি ও পেজের মালিক আপনি। কিন্তু চিন্তা করে দেখুন সত্যি কি আপনি মালিক? ফেসবুক কর্তৃপক্ষ ‘কমিউনিটি স্ট্যান্ডার্ডের’ অজুহাতে যেকোন সময় আপনার আইডি বা পেজ ব্যান করে দিতে পারে। পেজের পোস্ট রিচ কমিয়ে দিতে পারে। আপনার ‘এড একাউন্ট’ ব্যান করে দিতে পারে। এসব ঝামেলা থেকে মুক্তি দিতে পারে একটি ভাল মানের ই কমার্স ওয়েবসাইট।

এছাড়াও, ভার্চুয়াল জগতে দুষ্ট লোকের অভাব নেই। আপনার আইডি, সফল একটি পেজের মালিকানা ছোট একটি ভুলেই অন্যের হাতে চলে যেতে পারে। এরকম ঘটনা প্রায়ই আশে পাশে ঘটছে। ভেবে দেখুন, আপনার ক্ষেত্রে ঘটলে কেমন হবে! একটি ভাল মানের ই কমার্স ওয়েবসাইট আপনার ব্যাবসাকে অনলাইনে সুরক্ষিত রাখতে পারে।

একনজরে নিজস্ব ই কমার্স ওয়েবসাইটের সুবিধা সমূহ –

ফেসবুক একাউন্ট রেস্ট্রিক্টেড
  • গ্রাহকের আস্থা অর্জন সহজ হয়
  • লেনদেন করা সহজ ও বিশ্বাসযোগ্য
  • ওয়েব সাইটের নিয়ন্ত্রণ নিজের কাছে থাকে
  • গ্রাহকের ডাটাবেজ তৈরি সহজ
  • একটি ওয়েবসাইট আপনার জন্য মার্কেটিং এক্সিকিউটিভ এর মত কাজ করবে
  • গ্রাহক রিভিউ সহজে সকলের সামনে তোলে ধরা যায়
  • ‘’এসইও’’ করে ফ্রি গ্রাহক আনা সম্ভব হয়
  • দ্রুত ও কার্যকরভাবে পণ্যের অর্ডার প্রক্রিয়া  সম্পন্ন করা যায়

ফেইসবুক পেইজ অথবা ই কমার্স ওয়েবসাইট? নাকি দুটোই?

ফেসবুক পেজের মাধ্যমে ব্যাবসা পরিচালনা করার মধ্যে সুবিধা রয়েছে যথেষ্ট। কিন্তু যে যে অসুবিধা পোহাতে হয় বিক্রেতা এবং ক্রেতা উভয়কেই তা ভুক্তভোগী মাত্রই অনুধাবন করতে পারেন। অনেকে শেষ পর্যন্ত ব্যাবসা ছেড়ে দিতে বাধ্য হন। বিস্তারিত জানার জন্য পড়তে পারেন –

অন্যদিকে নিজস্ব ই কমার্স ওয়েবসাইট সবসময় সুবিধা জনক। বেসিক কিছু জ্ঞান থাকলে আপনি নিজেই আপনার ওয়েবসাইট নিজেই তৈরি করে নিতে পারবেন। ব্যাবসা পরিচালনা সুরক্ষিত ও সহজ হয় নিজের ওয়েবসাইটের মাধ্যমে।

আর যদি আপনি এই দুইটি মাধ্যম একসাথে সফল ভাবে ব্যবহার করতে পারেন সে ক্ষেত্রে আপনার সফলতা নিশ্চিত।

আরও পড়তে পারেন –

Leave a Reply